ঠাণ্ডা লাগলে চোখে কন্টাক্ট লেন্স পরবেন না

ঠাণ্ডা লাগলে চোখে কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহার থেকে বিরত থাকবেন যে কারণে

শীতকালে প্রায়ই অনেকেরই হুটহাট ঠান্ডা লাগে । এ সময়ে নিজেকে সুস্থ রাখতে চাইলে একটি কাজ অবশ্যই করা উচিত, আর তা হলো – কন্টাক্ট লেন্স পরা বন্ধ করে দেয়া। কারণ

অসুস্থ অবস্থায় কন্টাক্ট লেন্স পড়লে উপকারের তুলনায় ক্ষতিই হতে পারে বেশি। ঠাণ্ডা, সর্দি, কাশি এসব সমস্যা ভাইরাসের মাধ্যমে ছড়ায়। ভাইরাস সাধারণত আমাদের হাতের আঙ্গুল, টিস্যু, ন্যাপকিন, টাওয়েল, এগুলোর মাধ্যমেই ছড়ায়। এমনকি ঠাণ্ডার উপসর্গ দেখা দেওয়ার আগেই আমাদের চোখের পানিতে ভাইরাসের উপস্থিতি থাকতে পারে। কন্টাক্ট লেন্স পাল্টানোর সময়ে হাতে লেগে থাকা ভাইরাস নিজের চোখে এমনকি অন্যদের মাঝে ও ছড়াতে পারে।

ঠাণ্ডা লাগার সাথে সাথে অনেকের চোখ চুলকাতে থাকে। তার ওপর হাতে লেগে থাকা ভাইরাস চোখে গেলে সমস্যা বেড়ে যেতে পারে আরো কয়ের গুন্ যা আপনার যন্ত্রণাকে বাড়িয়ে দিবে। আর কন্টাক্ট লেন্স নিজেও চোখে জ্বালাপোড়া বাড়াতে পারে। এছাড়া লেন্সের কারণে চোখের গভীরেও চলে যেতে পারে ইনফেকশন।

কন্টাক্ট লেন্সের আরেকটি অসুবিধা হলো, ঠাণ্ডা লাগার সময়ে তা ব্যবহার করলে চোখ ওঠা বা কনজাংটিভাইটিস হওয়ার সম্ভাবনা বেড়ে যায়। লেন্স পরলে কনজাংটিভাইটিসের ভাইরাস চোখের পানির মাধ্যমে ধুয়ে যেতে পারে না। ফলে সমস্যাটি প্রকট হয়।

শীতকালের একটি সাধারণ সমস্যা হলো রুক্ষতা। এ সময়ে বাতাসে আর্দ্রতা কম থাকার কারণে চোখের পানি দ্রুত শুকিয়ে যায়। এ সময়ে চোখে ইনফেকশন হলে চোখ খুব চুলকাতে থাকে। অনেকেই চোখ চুলকে চোখের অনেক ক্ষতি করে ফেলেন। সর্দির জন্য অ্যান্টিহিস্টামিন ধরনের ওষুধ খেলে চোখ আরো বেশি শুকিয়ে যায়। এর ওপরে কন্টাক্ট লেন্স পরলে অস্বস্তি ও চুলকানি বেড়ে যেতে পারে।

তাহলে শীতকালে আপনার করণীয় কি ?

যতদিন না ঠান্ডা থেকে সেরে উঠছেন, কন্টাক্ট লেন্স ব্যবহার থেকে থেকে বিরত থাকুন। এর পাশাপাশি আইলাইনার, মাসকারা সহ চোখে ব্যবহারের সকল প্রকার মেকআপ ব্যবহার বন্ধ রাখুন। সর্বোত্তম উপায় হলো, ঠাণ্ডা লাগার আগে যা যা ব্যবহার করছিলেন, লেন্স, আই মেকআপ, এ সব ফেলে দিন। কারণ এগুলোতে ভাইরাসের সংক্রমণ হয়ে থাকতে পারে। ঠাণ্ডা ও কনজাংটিভাইটিস দূর হওয়ার এক সপ্তাহ পর থেকে আবার লেন্স ও মেকআপ ব্যবহার শুরু করতে পারেন। এছাড়া সবসময় হাত পরিষ্কার রাখতে হবে, অন্য কারো সাথে টাওয়েল শেয়ার থেকেও বিরত হউন।

Leave a Reply